পুষ্টি, বিপাক, পরিপাক, খাদ্য, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ এবং জল

1.পুষ্টি কি বা পুষ্টি কাকে বলে ? (Definition of Nutrition)
উঃ যে ধারাবাহিক ও সম্মিলিত উপচিতি বিপাক পদ্ধতিতে খাদ্য গ্রহণ, পরিপাক, শােষণ,আত্তীকরণ ও বহিষ্করণের মাধ্যমে (প্রাণীদের ক্ষেত্রে) অথবা সংশ্লেষ ও আত্তীকরণের মাধ্যমে(উদ্ভিদের ক্ষেত্রে) জীব তার প্রয়ােজনীয় শক্তি অর্জন করে, দেহের ক্ষয়পূরণ, বৃদ্ধি ও বিকাশ ঘটায়, জীবের রােগ প্রতিরােধের ক্ষমতা গড়ে ওঠে এবং জীবনের মৌলিক ধর্মগুলি সুষ্ঠভাবে পালিত হয়, তাকে পুষ্টি বা নিউট্রিশন বলে।
2. খাদ্য কি? (what is food)? খাদ্যের প্রকারভেদ ও উপাদান গুলি কি কি? ( What types of food and elements)
উঃ যে সমস্ত আহার্য সামগ্রী গ্রহণের মাধ্যমে জীবদেহের পুষ্টি, বৃদ্ধি ও ক্ষয়পূরণ ঘটে এবং প্রয়োজনীয় তাপ শক্তির যোগান পাওয়া যায়, তাদের খাদ্য বলে। যেমন- শর্করা প্রোটিন ও ফ্যাট।
জীব দেহের খাদ্যের কার্যকারিতা অনুযায়ী খাদ্য কে প্রধানত দুই ভগে ভাগ করা যায় - 
1. দেহ পরিপোষক খাদ্য বা খাদ্যের মুখ্য উপাদান
2. দেহ সংরক্ষক খাদ্য বা খাদ্যের সহায়ক উপাদান
খাদ্যের উপাদান- খাদ্যের ছয়টি উপাদান থাকে যথা কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ভিটামিন, খনিজ লবণ এবং জল।
3. তাপন মূল্য কি? ( What is Calorific value)
উঃ কোনো নির্দিষ্ট পরিমাণ খাদ্যবস্তুর সম্পূর্ণ জারণ হলে যে পরিমাণ তাপশক্তি উৎপন্ন হয়, তাকে ওই খাদ্যের তাপন মূল্য বা ক্যালোরিফিক ভ্যালু বলে। 
দেহে 1 গ্রাম কার্বোহাইড্রেট এর সম্পূর্ণ দহনে 4.0K cal তাপ শক্তি উৎপন্ন হয় এবং একজন প্রাপ্তবয়স্ক লোকের প্রত্যহ প্রায় 450-600 gm শর্করা জাতীয় খাদ্যের প্রয়োজন হয়।
4. ফ্যাট কি ? (What is fat OR Lipids)
উঃ কার্বন হাইড্রোজেন এবং অক্সিজেন নিয়ে ফ্যাট বা স্নেহপদার্থ গঠিত হয়। ফ্যাট প্রকৃতপক্ষে অ্যাসিড এবং গ্লিসারলের সমন্বয়ে গঠিত এস্টার বিশেষ।
1 গ্রাম ফ্যাট অর্থাৎ স্নেহপদার্থ দহন করলে 9.3Kcal  তপশক্তি উৎপন্ন হয়।
 এবং খাদ্য হিসেবে একজন প্রাপ্তবয়স্ক লোকের প্রতিদিন প্রায় 50 গ্রাম স্নেহ পদার্থ প্রয়োজন।
5. এস্টার কি?
উঃ জৈব এসিড এবং অ্যালকোহল এর সমন্বয়ে গঠিত লবণকে এস্টার বলে।
6. কোলেস্টেরল কি?
উঃ কোলেস্টেরল হল মানুষের রক্তে অবস্থিত একটি গুরুত্বপূর্ণ স্টেরল (লব্ধ ফ্যাট)। প্রতি 100ml রক্তে কোলেস্টেরলের স্বাভাবিক পরিমাণ হল 150-250 Mg । মানুষের রক্তে এর চেয়ে বেশি পরিমাণ কোলেস্টেরল থাকলে হৃদরোগের সম্ভাবনা থাকে।
7. সব ফ্যাটই লিপিড কিন্তু সব লিপিড ফ্যাট নয় কেন?
উঃ ফ্যাট ও লিপিডকে সমঅর্থে ব্যবহার করা হলেও ফ্যাট হলো লিপিডের একটি বিশেষ শ্রেণী, তাই সব ফ্ল্যাটে লিপিড কিন্তু সব লিপিড ফ্যাযাট নয়। লিপিড হলো ফ্যাটি অ্যাসিডের এস্টার।
8. প্রোটিন বা আমিষ কি? ( What is protein)
উঃ কার্বন, হাইড্রোজেন, অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন এর সমন্বয়ে প্রোটিন গঠিত। একজন প্রাপ্তবয়স্ক লোকের প্রত্যহ প্রায় 100-150gm প্রোটিন জাতীয় খাদ্যের প্রয়োজন।
9. প্রোটিনের অভাবে কি রোগ হয়?
উঃ কোয়াশিয়রকর এবং ম্যারাসমাস।
10.ম্যাক্রো বা মেজর এলিমেন্ট কি?
উঃ ম্যাক্রো বা মেজর এলিমেন্ট অর্থাৎ অতিমাত্রিক মৌলিক উপাদান : জীবের পুষ্টির জন্য যে সব মৌলিক উপাদান একান্ত দরকার এবং যাদের বেশি পরিমাণে প্রয়ােজন হয়, তাদের ম্যাক্রো
বা মেজর এলিমেন্ট বা অতিমাত্রিক মৌলিক উপাদান বলে। এই উপাদানগুলি হল : কার্বন (C), হাইড্রোজেন (H), অক্সিজেন (O), নাইট্রোজেন (N), সালফার (S), ফসফরাস (P), পটাশিয়াম (K), সােডিয়াম (Na), ম্যাগনেসিয়াম (Mg), ক্যালসিয়াম (Ca) এবং লােহা (Fe)।
11.মাইক্রো বা মাইনর এলিমেন্ট কি?
উঃ মাইক্রো বা মাইনর এলিমেন্ট অর্থাৎ স্বল্পমাত্রিক মৌলিক উপাদান : জীবের পুষ্টিতে যে সব মৌলিক উপাদান খুব অল্প পরিমাণে প্রয়ােজন হয়, তাদের স্বল্পমাত্রিক মৌলিক উপাদান অথবা মাইক্রো বা মাইনর বা ট্রেস এলিমেন্ট বলে। এই উপাদানগুলি হল : ম্যাঙ্গানিজ (Mn),ক্লোরিন (CI), কোবাল্ট (Co), তামা (Co) দস্তা (Zn) এবং বােরণ (B), মলিবডেনাম (Mo),সিলিকন (Si), আয়ােডিন (I) এছাড়াও কিছু জীবের ক্ষেত্রে অ্যালুমিনিয়াম (Al), ক্রোমিয়াম (Cr),ভ্যানাডিয়াম (V), এবং ভারী ধাতু সমূহ প্রয়ােজন হয়। 
12. ভিটামিন কি? কে আবিষ্কার করেন এবং দ্রাব্যতা অনুযায়ী ভিটামিন কয় প্রকার ?
উঃ সংজ্ঞা (Definition) : যে বিশেষ জৈব পরিপােষক সাধারণ খাদ্যে অতি অল্প পরিমাণে থেকে দেহের স্বাভাবিক পুষ্টি ও বৃদ্ধিতে সহায়তা করে এবং রােগ প্রতিরােধক শক্তি বৃদ্ধি করে,তাকে ভিটামিন বলে।
1911 খ্রিস্টাব্দে বিজ্ঞানী ক্যাশিমির ফাঙ্ক 
( Casimir Funk)  ভিটামিন নামে অভিহিত করেন।
দ্রাব্যতা অনুযায়ী ভিটামিনকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়-           1. তেলে বা স্নেহ পদার্থে দ্রবণীয় ভিটামিন - A,D,E,K
         2. জলে দ্রবণীয় ভিটামিন- B,C এবং P
13. মিথোজীবী এবং পতঙ্গভুক উদ্ভিদ কাকে বলে এবং তাদের উদাহরণ দাও।
উঃ মিথোজীবী (Symbiotic): যে পুষ্টির জন্য একজন অপর কোন জীবের সহচর্যে জীবন ধারণ করে পরস্পর উপকৃত হয় তাকে মিথোজীবী বা অন্যান্যজীবী বলে।
মৃতজীবী দুই রকমের হয় 1. ব্যতিহারী
                                      2. সহভোক্তা
ব্যতিহারী (Mutualism): ব্যতিহারীতে দুটি জিব সহাবস্থান করে পরস্পরের সাহায্যে পুষ্টিসম্পন্ন করে যেমন-লাইকেন
সহভোক্তা (Commensalism): সহভোক্তা তে দুটি জীব সহাবস্থানে থেকেও পরস্পর পৃথকভাবে পুষ্টিসম্পন্ন করে, যেমন- পরাশ্রয়ী উদ্ভিদ রাস্না, গজপিপুল ইত্যাদি।
পতঙ্গভুক(Insectivorous) : যে সব উদ্ভিদ নাইট্রোজেনঘটিত প্রােটিন খাদ্যের জন্য
পতঙ্গ ধরে পতঙ্গের দেহ থেকে পুষ্টিরস শােষণ করে পুষ্টি সম্পন্ন করে, তাদের পতঙ্গভুক
উদ্ভিদ বলে। যেমন- কলসপত্রী, সূর্যশিশির, পাতাঝাঝি ইত্যাদি পতঙ্গভুক উদ্ভিদ।
14. পরিপাক (Digestion) কাকে বলে?
উঃ যে প্রক্রিয়ায় প্রাণীদেহে গৃহীত অদ্রবণীয় কঠিন ও জটিল খাদ্য বিভিন্ন উৎসেচকের দ্বারা দ্রবণীয় সরল ও তরল খাদ্যে পরিণত হয়ে জীবদেহে শােষণ ও আত্তীকরণের উপযােগী হয়, তাকে পরিপাক (Digestion) বলে।
পরিপাককে প্রধানত দুইভাগে ভাগ করা যায়-
(a) অন্তঃকোশীয় পরিপাক (inter-cellular digestion) : কোশের মধ্যে উৎসেচকের দ্বারা যে পরিপাক হয়, তাকে অন্তঃকোশীয় পরিপাক বলে। যেমন : অ্যামিবার খাদ্য পরিপাক।
(b) বহিঃকোশীয় পরিপাক (extracellular digestion): কোশের বাইরে উৎসেচকের দ্বারা যে পরিপাক হয়, তাকে বহিঃকোশীয় পরিপাক বলে। যেমন : মানুষ, ব্যাঙ, কেঁচো,আরশােলা ইত্যাদি প্রাণীদের পৌষ্টিক নালিতে পরিপাক সম্পন্ন হয়। কিন্তু হাইড্রার দেহে অন্তঃকোশীয় ও বহিঃকোশীয় উভয় পরিপাকই ঘটে।
সংশ্লিষ্ট অঙ্গ : পরিপাকস্থান—মুখবিবর, পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত্র।
পরিপাকগ্রন্থি : লালাগ্রন্থি, পাকগ্রন্থি, যকৃৎ, অগ্ন্যাশয় এবং তান্ত্রিক গ্রন্থি।
পরিপাক পদ্ধতি: মানবদেহে পরিপাক প্রক্রিয়াটি পৌষ্টিক নালির মুখবিবর, পাকস্থলী এবং ক্ষুদ্রান্ত্রে সম্পন্ন হয়।
15. বিপাক (Metabolism) কাকে বলে?
উঃ জীবের প্রাণ ধারণের জন্য প্রতিটি সজীব কোশের প্রােটোপ্লাজমে অনবরত যে সব গঠনমূলক এবং ভাঙনমূলক রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটে চলেছে, সমষ্টিগতভাবে তাদের বিপাক বলা হয়।
বিপাক দুই রকমের-
1.উপচিতি বিপাক (Anabolism) : যে সমস্ত গঠনমূলক বিপাক ক্রিয়ায় জীবকোশের মধ্যে এক
বা একাধিক পদার্থ সংশ্লেষিত হওয়ায় জীবদেহের শুষ্ক ওজন বৃদ্ধি পায়, তাকে উপচিতি বিপাক বলে।
উদাহরণ : পুষ্টি, সালােকসংশ্লেষ প্রভৃতি উপচিতি বিপাকের উদাহরণ।
2.অপচিতি বিপাক (Catabolism) : যে সমস্ত ভাঙনমূলক বিপাক ক্রিয়ার ফলে জীব কোশীয় পদার্থ বিশ্লিষ্ট হওয়ায় জীবদেহের শুষ্ক ওজন হ্রাস পায়, তাকে অপচিতি বিপাক বলে।
শ্বসন ও রেচন একধরনের অপচিতি বিপাক।
16. B.M.R ( Basal Metabolic Rate) কাকে বলে?
উঃ একজন প্রাপ্তবয়স্ক সুস্থ ব্যক্তির হাল্কা খাদ্য গ্রহণের 12-18 ঘণ্টা পর, সম্পূর্ণ দৈহিক ও মানসিক বিশ্রামরত অবস্থায়, দেহের প্রয়ােজনীয় শারীরবৃত্তীয় কাজগুলি পরিচালনার জন্য প্রতিঘন্টায় প্রতিবর্গমিটার দেহতল থেকে যে নূ্যনতম তাপ শক্তি নির্গত হয়, তাকে বেসাল মেটাবলিক রেট বা B.M.R. বলা হয়।
**বেনেডিক্ট রোথ যন্ত্রের সাহায্যে B.M.R পরিমাপ করা হয়।
* একজন পূর্ণবয়স্ক সুস্থ কর্মশীল লােকের প্রত্যহ প্রায় 2,500-3,000 Kcal. (কিলাে ক্যালােরি) শক্তির প্রয়ােজন।
17. সুষম খাদ্য ( Balanced Diet) কাকে বলে?
উঃ যে খাদ্যে ব্যক্তি বিশেষের দৈহিক পুষ্টিসাধন, ক্ষয়পূরণ, কর্মশক্তি উৎপাদন, স্বাভাবিক বৃদ্ধি প্রভৃতির জন্য প্রয়ােজনীয় ছ'টি খাদ্য-উপাদানই অর্থাৎ কার্বোহাইড্রেট, প্রােটিন, ফ্যাট, ভিটামিন, খনিজ লবণ ও জল গুণাগুণ অনুসারে সঠিক পরিমাণে থাকে এবং যে খাদ্য গ্রহণ করলে দেহের স্বাভাবিক কর্মশীলতার জন্য উপযুক্ত পরিমাণ শক্তি অর্থাৎ ক্যালােরি পাওয়া যায়, তাকে সুষম খাদ্য বা ব্যালান্সড় ডায়েট বলে।
18. উৎসেচক কাকে বলে?
উঃ যে প্রােটিনধর্মী জৈব অনুঘটক (Organic catalyst), উত্তাপে পরিবর্তনশীল (Thermolabile), কোলয়েড প্রকৃতির,
কোশের ভিতরে ও বাইরে রাসায়নিক বিক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে এবং বিক্রিয়া শেষে নিজে অপরিবর্তিত থাকে তাকে উৎসেচক বা Enzymes বলে।

ভিটামিনের রাসায়নিক নাম ও অভাবজনিত ফলের তালিকা


ভিটামিনের রাসায়নিক নাম ও অভাবজনিত ফল
ভিটামিন রাসায়নিক নাম অভাবজনিত ফল



ভিটামিন A



রেটিনল
ভিটামিন A-র অভাবে :
(i) রাতকানা এবংঅন্ধত্ব বা জেরথ্যালমিয়া রােগ হয়।
(ii) ফ্রিনােডার্মা বা টোড-স্কিন অর্থাৎ ত্বক ব্যাঙের চামড়ার মত খসখসে হয়ে যায় এবং ফেটে যায়।
(iii) পরিপাক নালি, শ্বাসনালির আবরণী কলা, স্নায়ু ইত্যাদির ক্ষয় হয়। ভিটামিন এর অভাবে
(iv) মেরুদণ্ড এবং করােটির অস্থি বৃদ্ধি হয়।
(v) কেরাটোম্যালেসিয়া রাতকানা রােগ হয়। অর্থাৎ করনিয়া বিনষ্ট হয়।
(vi) রেনাল স্টোন অর্থাৎ বৃক্কে পাথর সৃষ্টি হয়।



ভিটামিন B
B1-থিয়ামিন,
B2-রাইবােফ্লাভিন,
B3-প্যান্টোথ্যানিক অ্যাসিড,
B4-কোলিন,
B5-নিয়াসিন,
B6-পাইরিডক্সিন,
B12-সায়ানােকোবালামিন
(i) বেরিবেরি—সাধারণত B1 এর অভাবে হয়। এই রােগে অঙ্গ প্রত্যঙ্গে শোথ এবং পক্ষাঘাত হয়।।
(ii) পারনিসিয়াস অ্যানিমিয়া বা রক্তাল্পতা—সাধারণত ফোলিক অ্যাসিড এবং B12 এর অভাবে হয়।
(iii) নিয়াসিনের (ভিটামিন B5) অভাবে পেলেগ্রা হয়।
(iv) স্টোমাটাইটিস বা মুখে ঘা এবং গ্লসাইটিস বা জিহ্বায় ঘা B2-এর অভাবে হয়।
(v) ক্ষুধামান্দ্য, অজীর্ণতা, চুল ওঠা, হাত-পা জ্বালা ইত্যাদি রােগ হয়।
(vi) ফোলিক অ্যাসিডের অভাবে মেগালােব্লাস্ট অ্যানিমিয়া (Megaloblast anaemia) রােগ হয়।



ভিটামিন C



অ্যাসকরবিক অ্যাসিড
C-ভিটামিনের অভাবে-
(i) স্কার্ভি রােগ (দাঁতের মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া) হয়।
(ii) রক্তহীনতা হয়।
(iii) অস্থি ও দন্ত ক্ষয় হয়।
(iv) রােগ প্রতিরােধক ক্ষমতা কমে গিয়ে সহজেই ঠাণ্ডা লাগে।
(v) রক্তের লােহিত কণিকা এবং অণুচক্রিকার পরিমাণ কমে যায়।
(iv) ক্ষতস্থান সহজে শুকায় না।

ভিটামিন D

ক্যালসিফেরল
(i) এই ভিটামিনের অভাবে শিশুদের রিকেট এবং বড়দের অস্টিওম্যালেসিয়া রােগ হয়।
(ii) দাঁতের বৃদ্ধি ব্যাহত হয় ও দাঁতের ক্ষয় হতে দেখা যায়।
(iii) রক্তে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ কমে যায় এবং ক্যালসিয়াম-বিপাক ব্যাহত হয়।

ভিটামিন E

টোকোফেরল
(i) বন্ধ্যাত্ব অর্থাৎ প্রজনন ক্ষমতা হ্রাস পাওয়া।
(ii) জরায়ুর মধ্যে ভুণের মৃত্যু।
(iii) স্তনদুগ্ধ নিঃসরণ কমে যাওয়া।

ভিটামিন K
ফাইলোকুইনন বা
ন্যাপথোকুইনন
(i) রক্তের প্রােথ্রমবিনের পরিমাণ কমে যাওয়া।
(ii) স্বাভাবিক রক্ততঞন ব্যাহত হওয়া এবং হেমারেজ বা রক্তক্ষরণ হওয়া।

Important MCQ for competitive exam
1. অ্যালবুমিন কি ধরনের প্রােটিনের উদাহরণ?
উঃ সরল প্রােটিন।
2.একটি যুগ্ম প্রােটিনের উদাহরণ দাও।
উঃ ফসফোপ্রােটিন।
3.1 গ্রাম প্রােটিনের তাপনমূল্য কত?
উঃ 4.1 K cal/gm
4.1 gm ফ্যাটের তাপনমূল্য কত?
উঃ 9.3 K cal/gm
5.কিসের অভাবে উদ্ভিদদেহে ক্লোরােফিল তৈরী ব্যাহত?
উঃ ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন
6.ভিটামিন এর মধ্যে কোনগুলি জলে দ্রবণীয় ভিটামিন?
উঃ B, C এবং P
7.যেসব উদ্ভিদ মৃতজীবি পুষ্টি সম্পন্ন করে তাদের কী বলা হয় ?
উঃ স্যাপ্রােফাইট।
8. দেহ পারিপোষক খাদ্যের একটি উদাহরণ দাও।
উঃ প্রােটিন।
9.প্রােটিনের গঠনগত একক কি?
উঃ অ্যামাইনাে অ্যাসিড।
10.প্রােটিনের পরিপূরক খাদ্য কি?
উঃ কার্বোহাইড্রেট।
11.কোন মৌলের উপস্থিতির জন্য প্রোটিন,
কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাট থেকে আলাদা থাকে?
উঃ নাইট্রোজেন।
12. দ্রাব্যতা অনুযায়ী ভিটামিন কয় প্রকারের?
উঃ দুই প্রকার।
13.ভিটামিন A এর অভাবে কোন রােগ হয় ?
উঃ রাতকানা।
14.ভিটামিন D এর রাসায়নিক নাম কি?
 উঃ ক্যালসিফেরল।
15.ভিটামিন D এর অভাবে কোন রােগ হয়?
উঃ রিকেট ।
16.অ্যানিমিয়ার জন্য দায়ী খনিজ পদার্থ কোনটি?
উঃ লোহা বা আয়রন (Fe)
17.একটি মিথােজিবী উদ্ভিদের উদাহরণ দাও।
উঃ লাইকেন ।
18.অন্তঃকোশীয় পরিপাক কোথায় দেখা যায় ?
উঃ অ্যামিবা।
19. মানুষের কি ধরনের পরিপাক দেখতে পাওয়া যায় ?
উঃ বহিঃকোশীয়।
20.কোন প্রাণীর দেহে অন্তঃ এবং বহিঃ উভয় ধরণের পরিপাক দেখতে পাওয়া যায়?
 উঃ হাইড্রা।
21.লালারসে উপস্থিত জল অঙ্গার বিভাজক উৎসেচক কোনটি?
উঃ টায়ালিন
22.লাইপােলাইটিক উৎসেচকের একটি উদাহরণ দাও।
উঃ লাইপেজ 
23.প্রােটিন পরিপাকের ফলে উৎপন্ন অন্তঃপদার্থের নাম কি?
উঃ অ্যামাইনাে অ্যাসিড
24.একটি প্রােটিওলাইটিক উৎসেচকের উদাহরণ দাও।
উঃ পেপসিন
25. আপরি হার্স অ্যামাইনাে অ্যাসিডের সংখ্যা কটি ?
উঃ ৪
26. আমাদের বৃহত্তম পরিপাক গ্রন্থিটির নাম কি?
উঃ যকৃত
27.একটি অন্তঃপরজীবি প্রাণীর উদাহরণ দাও।
উঃ ফিতাকৃমি।
28. BMR পরিমাপক যন্ত্রটির নাম কি? 
উঃ বেনেডিক্টরম যন্ত্র।
29. একটি মাইক্রোএলিমেন্টের উদাহণ দাও।
উঃ জিঙ্ক।
30.প্রতি 1°C দেহতাপ তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে BMR কত বৃদ্ধি পায় ?
উঃ10-12%
31.সুষম খাদ্যে কার্বোহাইড্রেট, ফ্যাট ও প্রােটিনের গড় কত হয়?
উঃ 4: 1:1
32.পিত্তরসের pH কত হয়?
উঃ 7.0-7.6 
33.একটি আংশিক পরজীবি উদ্ভিদের উদাহরণ দাও।
উঃ শ্বেতচন্দন
34.একটি পূণ মৃতজীবি সপুষ্পক উদ্ভিদের উদাহরণ দাও।
উঃ মনােট্রপা
35.কোন ভিটামিনের অভাবে স্টোমাটাইসিস হয়?
উঃ B2
36.কোন ভিটামিনের অভাবে পাখির পেরােসিস রােগ হয়?
উঃ B3
37.ভিটামিন C এর অভাবে কোন রােগ হয় ?
উঃ রক্তাল্পতা
38.স্ট্রেপটোমাইসেস গ্রিসিয়াস নামক ব্যাকটেরিয়ার দেহ থেকে কোন ভিটামিন পাওয়া যায়?
উঃ B12
39.পাইরিডক্সিন কোন ভিটামিনের রাসায়নিক নাম?
উঃ B6
40.ভিটামিন K এর রাসায়নিক নাম কি?
উঃ ফাইলােকুইনন
41.কেরাটোম্যালেসিয়ার জন্য কোন ভিটামিন দায়ী?
উঃ ভিটামিন A
42.কোন ভিটামিনের অভাবে রক্ততঞন হয়?
উঃ ভিটামিন K
43.উদ্ভিদ দেহের পরিবহনের মাধ্যম কি?
উঃ জল
44. একটি পূর্ণ পরজীবী উদ্ভিদের নাম বল।
উঃ স্বর্ণলতা, রাফ্লেসিয়া
                             Class -12
1. একটি দেহগঠনকারী খাদ্য উপাদানের নাম লেখাে।
উঃ কার্বোহাইড্রেট, ফ্যাট বা লিপিড এবং প্রোটিন।
 2. মিশ্র খাদ্যের RQ কত? 
উঃ কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন ও স্নেহ পদার্থের মিশ্র খাদ্যের RQ এর গড় মান হল 0.85
**RQ ( Respiratory Quotient) বা শ্বসন অনুপাত: দেহে জারণক্রিয়ায় উৎপাদিত কার্বন ডাই অক্সাইড ও ব্যবহৃত অক্সিজেনের অনুপাত কে বা RQ বলে।
RQ= CO2/O2
3. জেরপথ্যালমিয়া কোন ভিটামিনের অভাবে
হয়?
উঃ ভিটামিন A
4. বায়ােটিন কী?
উঃ বায়োটিন কে ভিটামিন H ও বলা হয়। ভিটামিন বি 7 বা ভিটামিন বি 8 একটি জল দ্রবণীয় বি ভিটামিন। বায়োটিন অল্প বয়সে চুল পড়া প্রতিরোধ করে।
5. লােহিত রক্তকণিকা গঠনকারী একটি ভিটামিনের নাম লেখাে।
উঃ ভিটামিন C বা অ্যাসকরবিক অ্যাসিড
6. ভিটামিন D-এর প্রােভিটামিনের নাম
লেখাে।
উঃ এরগোস্টেরল
7. বায়ােটিনের অ্যান্টিভিটামিনের নাম লেখাে। 
উঃ অ্যাভিডিন।
৪. ধনাত্মক নাইট্রোজেন সাম্য কাদের ক্ষেত্রে দেখা যায় ? 
উঃ শিশুদের ক্ষেত্রে ধনাত্মক নাইট্রোজেন সাম্য লক্ষ্য করা যায়। শিশুদের দেহে প্রচুর প্রোটিন সংশ্লেষিত হয় তাই গৃহীত নাইট্রোজেনের পরিমাণ রেচিত নাইট্রোজেনের তুলনায় বেশি।
9. একটি পেন্টাস্যাকারাইডের উদাহরণ দাও। 
উঃ ভারবেসকোজ।
10. গ্লুকান কী? 
উঃ কেবলমাত্র গ্লুকোজ দ্বারা গঠিতকে গ্লুকোসান বা গ্লুকান বলে। উদাহরণ- স্টার্চ 
11. একটি সেরিব্রোসাইডের উদাহরণ দাও। 
উঃ মস্তিষ্ক এবং স্নায়ুকে প্রাপ্ত সেরিব্রন, নার্ভন ইত্যাদি।
12. রানসিডিটি (Rancidity) কী? 
উঃ আলোক, আদ্রতা এবং পরিবেশে রেখে দিলে ফ্যাটের স্বাদ ও গন্ধে অপ্রতিকর পরিবর্তন ঘটে একে রানসিডিটি (Rancidity) বলে।
13. গ্লাইকোজেনেসিস কোথায় ঘটে? 
উঃ যকৃতে।
14. কয়েকটি হরমোন প্রোটিন এর উদাহরণ দাও।
উঃ  STH, ACTH, ইনসুলিন ইত্যাদি।
15. কিটোজেনেসিস কী? 
উঃ দেহে কিটোন বডি উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়াকে কিটোজেনেসিস বলে।
16. সর্ববৃহৎ লালাগ্রন্থির নাম লেখাে। 
উঃ প্যারোটিড গ্রন্থি হল লালাগ্রন্থি গুলির মধ্যে সবচেয়ে বড় গ্রন্থি। আর অন্যান্য গ্রন্থগুলি হল সাবম্যান্ডিবুলার এবং সাবলিঙ্গুয়াল গ্রন্থি।
17. দুটি পিত্তলবণের নাম লেখাে। 
উঃ সোডিয়াম টরোকালেট ও সোডিয়াম গ্লাইকোলেট।
18. পেকটিক আলসার সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার নাম লেখাে। 
উঃ Helicobacter pylori নামক ব্যাকটেরিয়া।
19. এক গ্রাম শর্করার ক্যালরি মান কত?
উঃ 4 K cal
20. মানবদেহের সর্ববৃহৎ গ্রন্থির নাম লেখ।
উঃ যকৃত (Liver)
21. পিত্ত (Bile) কি?
উঃ পিত্ত হলো যকৃতের ক্ষরিত ও রেচিত পদার্থ।
                                Class- 9
1. কোন্ ধাতব মৌলটি উদ্ভিদে ক্লোরােফিল অণু গঠনে প্রয়ােজন?
উঃ ম্যাগনেসিয়াম (Mg)
2. দেহে নাইট্রোজেন সরবরাহ করে কোন্ জাতীয় খাদ্য ?
উঃ প্রােটিন 
3. ভিলাই কোথায় অবস্থিত ?
উঃ ক্ষুদ্রান্তে।
4.একজন পূর্ণবয়স্ক পুরুষের দৈনিক গড়ে মােট কত ক্যালরি প্রয়ােজন?
উঃ 2500- 3000 Kcal শক্তির প্রয়োজন।
5. কার্বন, নাইট্রোজেন, সালফার ও মলিবডিনামের মধ্যে কোনটি উদ্ভিদের স্বল্পমাত্রিক মৌল উপাদান?
উঃ মলিবডিনাম (Mo)
6.  কোন্ মৌলটির অভাবে উদ্ভিদে ক্লোরােসিস ঘটে? 
উঃ ম্যাগনেসিয়াম অথবা লোহার অভাবে উদ্ভিদের ক্লোরোফিলের ঘাটতি জনিত রোগ বা ক্লোরোসিস হয়।
7. মানবদেহে পৌষ্টিকতন্ত্রের ভিতর কোন অংশে পাচিত খাদ্যবস্তু শােষিত হয়? 
উঃ ক্ষুদ্রান্ত্র 
8. স্নেহজাতীয় পদার্থের পরিপাক কোথায় হয়?
উঃ পাকস্থলীতে।
9. একটি মিথােজীবী উদ্ভিদের নাম লেখ। 
উঃ লাইকেন।
10.কোন্ ভিটামিনগুলি জলে দ্রবণীয়? 
উঃ B, C ,P
11. নিম্নলিখিত মৌলগুলির মধ্যে কোনটি উদ্ভিদের ক্ষেত্রে স্বল্পমাত্রিক মৌল উপাদান হিসাবে প্রয়ােজন?
(a) কার্বন (b) বােরন (c) নাইট্রোজেন। 
উঃ (b) বােরন
12. একটি পরজীবী উদ্ভিদের নাম লেখ।
উঃ শ্বেত চন্দন
13. ভিলাই কোথায় অবস্থিত? (a) বৃক্কে (b) মুখগহ্বরে (c) ফুসফুসে d) ক্ষুদ্রান্ত্রে। 
উঃ d) ক্ষুদ্রান্ত্রে
14. মানুষের খাদ্যে আয়ােডিনের গুরুত্ব উল্লেখ কর।
উঃ হিমোগ্লোবিন গঠনে সহায়তা করে এবং রক্তে অক্সিহিমোগ্লোবিন রুপে অক্সিজেন বহন করে।

এই চ্যাপ্টারের মক টেস্ট দিতে ক্লিক করুন

Next Post Previous Post
1 Comments
  • Unknown
    Unknown May 5, 2021 at 9:19 PM

    Superb

Add Comment
comment url