Breaking

Wednesday, June 15, 2022

তেজস্ক্রিয়তা কাকে বলে? তেজস্ক্রিয়তার বৈশিষ্ট্য ও তেজস্ক্রিয়তার ধর্ম

তেজস্ক্রিয়তা কাকে বলে?

কয়েকটি বিশেষ ধরনের নিঃসরণ করে ভারী নিউক্লিয়াসগুলি স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভেঙে যাওয়ার প্রক্রিয়াকে তেজস্ক্রিয়তা বলে।

তেজস্ক্রিয়তা আবিষ্কারের ইতিহাস

1896 খ্রিস্টাব্দে হেনরি বেকারেল তেজস্ক্রিয়তা আবিষ্কার করেন। হেনরি বেকারেল একদিন পটাশিয়াম সালফেটের একটি টুকরোকে কালো কাগজে মুড়ে ড্রয়ারে রেখেছিলেন। ড্রয়ারে কালো কাগজ মোড়া কয়েকটি ফটোগ্রাফিক প্লেটও ছিল। কয়েকদিন পর তিনি দেখেন ফটোগ্রাফিক প্লেটের উপর কালো দাগ পড়েছে। যদিও তিনি ইউরেনিয়াম যৌগটির টুকরোকে রোদে রেখে উত্তপ্ত করেননি। এ থেকে বেকারেল সিদ্ধান্ত করেন ইউরেনিয়াম ঘটিত যৌগ সর্বদা এক প্রকার ভেদনশক্তি সম্পন্ন রশ্মি বিকিরণ করে। এই রশ্মিকে তেজস্ক্রিয় রশ্মি এবং এই ঘটনাকে তেজস্ক্রিয়তা বলে। এরপর মাদাম কুরী এবং পিয়ের কুরী পিচব্লেণ্ড থেকে পোলোনিয়াম এবং
আরও পরে অত্যাধিক তেজস্ক্রিয় পদার্থ রেডিয়াম আবিষ্কার করেন। 

তেজস্ক্রিয় রশ্মি কাকে বলে?

তেজস্ক্রিয় মৌল থেকে উচ্চভেদন শক্তি সম্পন্ন যে রশ্মি বেরিয়ে আসে তাকে তেজস্ক্রিয় রশ্মি বলে। পরমাণুর নিউক্লিয়াসের গঠনগত পরিবর্তনই এই রশ্মির মূল উৎস।

প্রাকৃতিক তেজস্ক্রিয়তা কী?

ইউরেনিয়াম (₉₂U), থোরিয়াম (₉₀Tu), পোলোনিয়াম (₈₄Po), রেডিয়াম(₈₈Ra) ইত্যাদি ভারী মৌলগুলির পরমাণুর নিউক্লিয়াস স্বতঃস্ফূর্তভাবে অবিরাম গতিতে ভেঙে গিয়ে নতুন মৌলের নিউক্লিয়াসে পরিণত হয় এবং সেইসঙ্গে শক্তিশালী রশ্মির বিকিরণ ঘটায়। এই বিকিরণ ফটোগ্রাফিক প্লেটে বিক্রিয়া ঘটায় ও পাতলা ধাতব পাত ভেদ করতে পারে। তাপ, চাপ, আলোক, তড়িৎচুম্বক বা রাসায়নিক বিক্রিয়া প্রভৃতি বাহ্যিক কারণ এই বিকিরণকে প্রভাবিত করে না।
মৌলগুলি থেকে নিঃসৃত ওই জাতীয় শক্তিশালী রশ্মিকে তেজস্ক্রিয় রশ্মি, ওই রশ্মি নিঃসরণের এই ঘটনাকে প্রাকৃতিক তেজস্ক্রিয়তা বলে। যেসব পদার্থ থেকে ওই রশ্মি বিকিরিত হয় সেই পদার্থগুলিকে প্রাকৃতিক তেজস্ক্রিয় পদার্থ বলে।

তেজস্ক্রিয়তার বৈশিষ্ট্য

তেজস্ক্রিয়তার বৈশিষ্ট্য গুলি হল-
(i) তেজস্ক্রিয়তা হল নিউক্লিয় ঘটনা, এর সঙ্গে নিউক্লিয়াস বহির্ভূত ইলেকট্রনগুলির সম্পর্ক নেই। 
(ii) 83-এর বেশি পারমাণবিক সংখ্যাবিশিষ্ট মৌলগুলির তেজস্ক্রিয়তা দেখা যায়। 
(iii) যে মৌলের পরমাণুর নিউট্রন ও প্রোটন সংখ্যার অনুপাত 1 : 5-এর বেশি হয় সেই মৌলের তেজস্ক্রিয় ধর্ম দেখা যায়। 
(iv) তেজস্ক্রিয়তা হল মৌলের পরমাণুকেন্দ্রক বা নিউক্লিয়াসের অভ্যন্তরীণ ঘটনা। ইলেকট্রনের গঠনের সঙ্গে এর কোনও সম্পর্ক নেই। 
(v) তেজস্ক্রিয়তা হল নিউক্লিয়াসের ভাঙন বা বিঘটন। এই বিঘটনের ফলে একটি মৌল সম্পূর্ণ নতুন রাসায়নিক ও ভৌত ধর্মাবলি বিশিষ্ট নতুন মৌলে রূপান্তরিত হয়।

তেজস্ক্রিয়তার একক 

তেজস্ক্রিয়তার প্রচলিত একক হল কুরি (Curie)। যদি কোনো তেজস্ক্রিয় মৌলের ক্ষেত্রে প্রতি সেকেন্ডে 3.7 x 10⁻¹⁰ টি পরমাণুর ভাঙ্গন ঘটে তবে ওই মৌলের তেজস্ক্রিয়তার মান এক কুরি ধরা হয়। তেজস্ক্রিয়তা পরিমাপের এস. আই. একক বেকারেল

তেজস্ক্রিয় রশ্মিসমূহের ধর্ম

তেজস্ক্রিয় রশ্মির মধ্যে তিন ধরনের বিকিরণ রশ্মি থাকে। এদের আলফা রশ্মি (α-rays), বিটা রশ্মি (β-rays), গামা রশ্মি (γ-rays) বলা হয়। পরীক্ষা দ্বারা জানা যায় আলফা রশ্মি ধনাত্মক আধানযুক্ত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণার স্রোত।
বিটা রশ্মি ঋণাত্মক আধানযুক্ত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণার স্রোত। গামা রশ্মি ক্ষুদ্র তরঙ্গ দির্ঘ্যের তড়িৎচুম্বকীয় তরঙ্গ।

α, β, γ রশ্মির প্রকৃতি

α কণা :
i) α রশ্মি উচ্চ বেগসম্পন্ন কণার স্রোত।
ii) α ধনাত্মক আধানবিশিষ্ট। ইহার আধান প্রোটনের আধানের দ্বিগুণ। ইহার ভর প্রোটনের ভরের চারগুণ
iii) α কণার ভর হাইড্রোজেন পরমাণু ভরের চার গুণ এবং হিলিয়াম পরমাণুর ভরের সমান ‌। এর সংকেত ⁴₂He⁺⁺
iv) α কণার ভেদন ক্ষমতা অনেক কম।
vi) ইহা ফটোগ্রাফিক প্লেটের উপর ক্রিয়া করে।
β কণা :
i) β রশ্মি হল ঋণাত্মক আধানযুক্ত ইলেকট্রন কণার স্রোত।
ii) β কণার ভর একটি ইলেকট্রন কণার ভরের প্রায় সমান। এর ভেদন ক্ষমতা α কণার ভেদন ক্ষমতার 100 গুণ বেশি। γ কণার ভেদন ক্ষমতার 1/100 অংশ।
γ কণা :
(i) γ রশ্মি আলোকরশ্মির মতো একধরনের তড়িৎচুম্বকীয় তরঙ্গ।
(ii) ইহার আধান শূন্য।
(iii) γ কণা ভরহীন।
(iv) এর ভেদন ক্ষমতা খুব বেশি। α কণার ভেদন ক্ষমতার 10000 গুণ।
(v) ইহা জীবিত কোশকে ধ্বংস করে।

তেজস্ক্রিয়তা থেকে প্রশ্ন উত্তর

1. তেজস্ক্রিয়তা আবিষ্কার করেন কে?
উঃ হেনরি বেকারেল
2. ইউরেনিয়ামের তেজস্ক্রিয়তা আবিষ্কার করেন কে?
উঃ হেনরি বেকারেল।
3. একটি তেজস্ক্রিয় পদার্থের নাম কি?
উঃ ইউরেনিয়াম, থোরিয়াম, রেডিয়াম
4. রেডিয়াম কে আবিষ্কার করেন?
উঃ মাদাম কুরী এবং পিয়ের কুরী।
5. তেজস্ক্রিয়তার একক কি?
উঃ তেজস্ক্রিয়তার এস আই একক বেকারেল।

আরো পড়ুন-
1. তেজস্ক্রিয়তার দূষণের কারণ ও তেজস্ক্রিয়তার দূষণের প্রভাব ও নিয়ন্ত্রণ
2. নিউক্লিয় সংযোজন ও নিউক্লিয় বিভাজন কি?
3. ডায়োড কি? ডায়োড এর গঠন ও কার্য ব্যাখ্যা করো।
4. এক্স রশ্মি কি এবং এর ব্যবহার

No comments:

Post a Comment

কোন প্রশ্নের উত্তর ভুল থাকলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবে ( কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সময়ের সাথে সাথে উত্তর পরিবর্তন হয়)