Breaking

Friday, December 3, 2021

দক্ষিণ আমেরিকার ভূপ্রকৃতি ও নদনদী জলবায়ু  ও স্বাভাবিক উদ্ভিদ থেকে প্রশ্ন ও উত্তর

অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর

1. দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান নদীর নাম কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান নদীর নাম আমাজন।
2. দক্ষিণ আমেরিকার সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম আকানকাগুয়া শৃঙ্গ।
3. দক্ষিণ আমেরিকার জীবন্ত আগ্নেয়গিরিগুলাে কী কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার জীবন্ত আগ্নেয়গিরিগুলাে হল চিম্বারাজো,  কায়াম্বি, কটোপ্যাক্সি ইত্যাদি।
4. দক্ষিণ আমেরিকার একটি মৃত আগ্নেয়গিরির নাম বলাে।
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার একটি মৃত আগ্নেয়গিরি হল আকানকাগুয়া।
5. দক্ষিণ আমেরিকার একটি মরুভূমির নাম করাে।
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার একটি মরুভূমির নাম প্যাটাগােনিয়া।
6. আটাকামা কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার একটি উষ্ণ মরুভূমি হল আটাকামা।
7. আন্দিজ পর্বতশ্রেণির দৈর্ঘ্য কত ?
উত্তরঃ আন্দিজ পর্বতশ্রেণির দৈর্ঘ্য প্রায় ৮০০০ কিমি।
8. আন্দিজ পর্বত কোন শ্রেণির পর্বতশ্রেণি ?
উত্তরঃ আন্দিজ পর্বত নবীন ভঙ্গিল পর্বতশ্রেণি।
9. আন্দিজ পর্বতশ্রেণি দক্ষিণ আমেরিকার কোন দিকে অবস্থিত ?
উত্তরঃ আন্দিজ পর্বতশ্রেণি দক্ষিণ আমেরিকার পশ্চিমদিকে অবস্থিত।
10. ল্যানােস কাকে বলে ?
উত্তরঃ ওরিনকো নদী অববাহিকার সমভূমিকে ল্যানােস বলে।
11. টিয়েরা ডেলফিউরাে কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের একটি দ্বীপ।
12. সাও পালাে কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের সবচেয়ে বড়াে নগর। এখানে কফি ও কার্পাস সবথেকে বেশি উৎপাদন হয়। বিখ্যাত মােটরগাড়ি কারখানাও আছে।
13. ইটাটিয়া শৃঙ্গ কোন পর্বতে অবস্থিত ?
উত্তরঃ ব্রাজিলের মন্টিকুইয়া পর্বতে অবস্থিত।
14. সেলভা কাকে বলে ?
উত্তরঃ আমাজন নদীর অববাহিকার গভীর চিরহরিৎ অরণ্যকে সেলভা বলে।
15. আন্দিজ পর্বতের উচ্চতা কত ?
উত্তরঃ আন্দিজ পর্বতের উচ্চতা প্রায় ৩৬০০ মিটার।
16. চিলির উপর বিস্তৃত পর্বতশ্রেণির নাম কী ?
উত্তরঃ চিলির উপর বিস্তৃত পর্বতশ্রেণির নাম রিয়েল পর্বত।
17. টিটিকাকা কী ?
উত্তরঃ পেরু ও বলিভিয়ার বিখ্যাত হ্রদ টিটিকাকা।
18. আমাজন নদীর অববাহিকার উঁচু ভূমিকে কয় ভাগে ভাগ করা যায় ?
উত্তরঃ আমাজন নদীর অববাহিকার, উঁচু ভূমিকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়—(১) গিয়ানার উঁচু ভূমি, (২) ব্রাজিলের উঁচু ভূমি।
19. ব্রাজিল উচ্চভূমির সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম কী ?
উত্তরঃ ব্রাজিল উচ্চভূমির সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম পিকো-ডাে-বানডাইরা।
20. আলফালফা কী ?
উত্তরঃ পম্পাস সমভূমির একজাতীয় ঘাস হল আলফালফা।
21. পৃথিবীর সর্বোচ্চ জলপ্রপাতটির নাম কী ?
উত্তরঃ কারােনি নদীর অ্যাঞ্জেল জলপ্রপাত পৃথিবীর সর্বোচ্চ জলপ্রপাত।
22. গিয়ানার উচ্চভূমির গড় উচ্চতা কত ?
উত্তরঃ গিয়ানার উচ্চভূমির গড় উচ্চতা প্রায় ৮০০ মিটার।
23. দক্ষিণ আমেরিকার অধিকাংশ নদী কোথায় মিলিত হয়েছে ?
উত্তরঃ আটলান্টিক মহাসাগরে দক্ষিণ আমেরিকার বেশির ভাগ নদী মিলিত হয়েছে।
24. ইকুয়েডরের রাজধানীর নাম কী ?
উত্তরঃ ইকুয়েডরের রাজধানীর নাম কুইটো।
25. চির বসন্তের দেশ কাকে বলে ?
উত্তরঃ কুইটো শহরকে চির বসন্তের দেশ বলে।
26. দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশে শুষ্কতম স্থানটির নাম কী ?
উত্তরঃ চিলির অরিকা দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের শুষ্কতম স্থান।
27. কোন অরণ্য কে পৃথিবীর ফুসফুস বলা হয়?
উঃ সেলভা অরণ্য কে পৃথিবীর ফুসফুস বলা হয়।

সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর

1. ভূগঠন অনুসারে দক্ষিণ আমেরিকাকে কয়টি প্রাকৃতিক বিভাগে ভাগ করা যায় ? ভাগগুলি কী কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের ভূমিরূপ বিচার করলে একে প্রধানত চার ভাগে ভাগ করা যায়। যেমন—
(১) পশ্চিমের অপ্রশস্ত উপকূলীয় সমভূমি,
(২) পশ্চিমের আন্দিজ পার্বত্য অঞ্চল, 
(৩) পূর্ব ভাগের উচ্চভূমি এবং 
(৪) মধ্য ভাগের সমতলভূমি।
2. আমাজন নদীর মােহনায় ব-দ্বীপ গড়ে ওঠেনি কেন?
উত্তরঃ নিরক্ষীয় অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় প্রচুর বৃষ্টিপাতের ফলে আমাজন নদীতে সারা বছরই প্রচুর জল থাকে। নদীটিতে সর্বদা তীব্র স্রোত দেখা যায়। মােহনা থেকে নিকটবর্তী ২০০ কিলােমিটার পর্যন্ত সমুদ্রের জল ঘােলা থাকে এবং লবণাক্তের পরিমাণ কম হয়। তীব্রবেগে জলপ্রবাহের জন্য মােহনায় কোনাে রকম পলি সঞ্চয় হয় না। এই কারণে ব-দ্বীপ গড়ে ওঠেনি।

3. দক্ষিণ আমেরিকার সমভূমিগুলাের নাম করাে এবং সেগুলাের অবস্থান বর্ণনা করাে।
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার সমভূমিগুলাে হল—
(১) আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ের পম্পাস সমভূমি অঞ্চল, 
(২) উত্তরে ভেনেজুয়েলায় ওরিনকো নদীর সমভূমি অঞ্চল,
(৩) ওরিনকো নদীর দক্ষিণে আমাজন অববাহিকা অঞ্চল, 
(৪) দক্ষিণে প্যারাগুয়ে ও আর্জেন্টিনার পারানা ও প্যারাগুয়ে নদীর সমভূমি অঞ্চল। 
এছাড়া প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূলবর্তী অঞ্চলে সংকীর্ণ উপকূলীয় সমভূমি অঞ্চল দেখা যায়।

4. সেলভা অরণ্য কি?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের আমাজন নদীর অববাহিকায় যে গভীর ঘন চিরহরিৎ অরণ্য বা ক্রান্তীয় বৃষ্টি অরণ্য দেখা যায় তার নাম সেলভা।

আমাজন নদীর অববাহিকাটি নিরক্ষীয় জলবায়ুর অন্তর্গত। এখানে সারা বছরই সূর্যরশ্মি লম্বভাবে পতিত হয়। ফলে উষ্ণতার তীব্রতাও বেশি। একারণেই দিনের বিকেলে পরিচলন বৃষ্টিপাত ঘটে। প্রচুর বৃষ্টিপাত এবং পর্যাপ্ত উষ্ণতার জন্য গভীর চিরহরিৎ অরণ্যের সৃষ্টি হয়েছে। পর্ণমােচী এবং চিরসবুজ দুই গাছ এখানে দেখা যায়। মেহগিনি, আবলুস, রবার, রােজউড, আয়রন উড, ব্রাজিলিয়ান নাট প্রভৃতি স্বাভাবিক উদ্ভিদ জন্মায়।

5. ব্রাজিলের উচ্চভূমির ভূপ্রকৃতির বর্ণনা দাও।
উত্তরঃ ব্রাজিলের উচ্চভূমি অঞ্চলটি প্রাচীন শিলা, আগ্নেয় শিলা, বালি, পাথর এবং লাভা দিয়ে গঠিত। অসংখ্য মালভূমি, অনুচ্চ পাহাড় এবং মৃত আগ্নেয়গিরির মােচার মতাে দেখতে চূড়া এই উচ্চভূমিতে দেখা যায়। এই অঞ্চলটি উত্তর থেকে দক্ষিণে ক্রমশ ঢালু হয়ে আমাজন উপত্যকার সমতল ভূমিতে এসে মিশিছে আবার দক্ষিণাংশ দক্ষিণ-পশ্চিম ঢালু হয়ে পারানা উপত্যকার সমভূমিতে মিশেছে।

6. কুইটোকে চির বসন্তের দেশ বলা হয় কেন ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের ইকুয়েডর দেশটির রাজধানী কুইটো শহরে চির বসন্ত বিরাজ করে। কারণস্বরূপ উল্লেখ করা যায় যে কুইটো শহরের ওপর দিয়ে নিরক্ষরেখা অবস্থিত হওয়ার জন্য সারা বছর এই শহরে সূর্যরশ্মি লম্বভাবে কিরণ দেয়। আবার আন্দিজ পর্বতের ওপর প্রায় 4000 মিটার উচ্চতায় অবস্থানের ফলে এই শহরের তাপমাত্রা সমুদ্রতলের তাপমাত্রার চেয়ে অনেক কম থাকে। ফলে শহরের জলবায়ুতে সারা বছর বসন্তকালের আবহাওয়া পরিলক্ষিত হয়।

7. দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের ভূপ্রকৃতির বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করাে।
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের প্রায় ষাট ভাগ উচ্চভূমি। এই উচ্চভূমিকে দু'ভাগে ভাগ করা যায়। একটি পশ্চিমদিকের আন্দিজ পার্বত্য অঞ্চল, অপরটি পূর্বদিকের ব্রাজিলের উচ্চভূমি। ম্যাটোগ্রাসাে, মালভূমির মাধ্যমে উভয়ের মধ্যে যােগাযােগ রক্ষিত হয়, ব্রাজিল ও গিয়ানার উচ্চভূমির মধ্যে দিয়ে পৃথিবীর বৃহত্তম আমাজন নদী প্রবাহিত হয়েছে। এই অববাহিকা আয়তনে যথেষ্ট বড়াে। সেখানকার বিস্তীর্ণ অংশ সমভূমি ও কতক অংশ নিম্নভূমি ও জলাভূমি। এই অঞ্চলের উষ্ণ ও আর্দ্র জলবায়ু অত্যন্ত ঘন লােকবসতি এবং তাদের জীবিকা অর্জনের পক্ষে অনুপযােগী। দক্ষিণে লা-প্লাটা অববাহিকা, পম্পাস অঞ্চলের সমভূমি এবং পূর্বদিকের উপকূলের সমভূমি লােকবসতির পক্ষে উপযােগী। সমভূমি অঞ্চল সব বিষয়ে উন্নত।
8. দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের জলবায়ুর সংক্ষিপ্ত বিবরণ দাও।
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের উত্তরাংশের উপর দিয়ে নিরক্ষরেখা এবং মধ্যভাগের দক্ষিণে মকরক্রান্তি রেখা পূর্ব-পশ্চিমে বিস্তৃত। সেজন্য ব্রাজিলের অন্তর্গত সমগ্র আমাজন উপত্যকা এবং উত্তরে কলম্বিয়া, ভেনেজুয়েলা, গিয়ানা প্রভৃতি অঞ্চল নিরক্ষীয় জলবায়ুর অন্তর্গত। সারা বছর প্রচুর বৃষ্টিপাত ও উত্তাপ এই জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য। এইজন্যে নিরক্ষীয় অঞ্চলে গভীর বনভূমি দেখা যায়। মকরক্রান্তি রেখার দক্ষিণে অবস্থিত অংশ নাতিশীতােষ্ণ জলবায়ুর অন্তর্গত। নাতিশীতােষ্ণ মণ্ডলের অন্তর্গত বিস্তীর্ণ অঞ্চলে তৃণভূমি আছে। এই তৃণভূমি পম্পাস নামে পরিচিত।

9. দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের বনজ সম্পদ উল্লেখ করাে। এই সম্পদ কাজে লাগাবার প্রধান অন্তরায় কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের নিরক্ষীয় অঞ্চলে উষ্ণ ও আর্দ্র জলবায়ুর জন্য পৃথিবীর বৃহত্তম নিবিড় চিরহিরৎ অরণ্যের সৃষ্টি হয়েছে। এই অরণ্য সেলভা নামে পরিচিত। এখানকার অধিকাংশ গাছ 60-90 মিটার উঁচু। বেশি মােটাও নয়, কিন্তু তাদের শাখা-প্রশাখা সুদূরপ্রসারী ও বিস্তীর্ণ। এখানকার সিডার, আবলুস, রােজউড, লগউড, গ্রীনহাট, মােরা, বন্য রবার, লিটিড প্রভৃতি গাছের কাঠ খুব শক্ত ও মূল্যবান। সেলভা বনভূমি রবার গাছের আদি বাসস্থান।
এই অরণ্যভূমির অস্বাস্থ্যকর আবহাওয়া, বিষাক্ত কীটপতঙ্গের উপদ্রব ও পরিবহন ব্যবস্থার অভাবে এখানকার বনজ সম্পদ সংগ্রহ করা খুবই কঠিন।

10. দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের প্রাণীজ সম্পদের বিবরণ দাও। পৃথিবীতে মৎস্য আহরণে এই মহাদেশের স্থান কোথায় ?
উত্তরঃ এই মহাদেশের সেলভার অরণ্যে পুমা, জাগুয়ার, শ্লথ, পেকারি, টেপির প্রভৃতি বন্যপ্রাণী বাস করে। ক্রান্তীয় তৃণভােজী প্রাণী ও পশ্চিমদিকের দ্বীপপুঞ্জে অসংখ্য রকমের পাখি ও পৃথিবীর বৃহত্তম কচ্ছপ দেখা যায়। পশ্চিমদিকের পার্বত্য অঞ্চলে অসংখ্য লামা, আলপাকা ও ভিকুনিয়া, বাস করে। আলপাকার পশম উৎকৃষ্ট। লামা পার্বত্য অঞ্চলের ভারবহনের পক্ষে বিশেষ উপযােগী।
সমুদ্রবেষ্টিত এই মহাদেশের উপকূলবর্তী সমুদ্রে প্রচুর মাছ পাওয়া যায় । মাছ আহরণের জন্য পেরু বিখ্যাত। এই দেশ মাছ আহরণে পৃথিবীতে প্রথম স্থান অধিকার করে। পৃথিবীতে প্রতি বছর যত মাছ ধরা পড়ে, তার এক-পঞ্চমাংশ ধরা পড়ে দক্ষিণ আমেরিকায়।

11. দক্ষিণ আমেরিকায় কী কী খনিজ দ্রব্য পাওয়া যায় ? এগুলি কোথায় উত্তোলিত হয় ?
উত্তরঃ খনিজ দ্রব্য উৎপাদনে দক্ষিণ আমেরিকা বিশেষ উল্লেখযােগ্য। এখানে স্বর্ণ, রৌপ, তাম্র, প্লাটিনাম, হীরক প্রভৃতি মূল্যবান ধাতু পাওয়া যায়। খনিজ তেল ও নাইট্রেট এই মহাদেশের প্রধান খনিজ সম্পদ। ভেনেজুয়েলার খনিজ তেল, সুরিনাম ও গায়নার বক্সাইট, চিলি ও পেরুর তাম্র ও নাইট্রেট, ব্রাজিল ও চিলির লৌহ-আকরিক, কলম্বিয়া, বলিভিয়া, পেরু ও চিলির রৌপ্য এবং বলিভিয়ার রাং (টিন) বিশেষ উল্লেখযােগ্য। ব্রাজিলে হীরক ও ম্যাঙ্গানিজ এবং চিলিতে নাইট্রেট পাওয়া যায়।

12. দক্ষিণ আমেরিকার পূর্বভাগের উচ্চভূমি কয় ভাগে বিভক্ত ? ওদের নাম কী কী ? কোন নদীর অববাহিকা এই উচ্চভূমিকে বিভক্ত করেছে ? এই উচ্চভূমি কোন কোন শিলা দ্বারা গঠিত ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের উত্তর অংশ পশ্চিমে আন্দিজ পর্বতমালা থেকে পূর্বদিকে আটলান্টিক মহাসাগর পর্যন্ত উচ্চ মালভূমি। এই উচ্চভূমি আমাজন অববাহিকা দ্বারা দুই ভাগে বিভক্ত। গিয়ানা রাজ্যে অবস্থিত উত্তরের মালভূমিকে বলে গিয়ানার উচ্চভূমি এবং পূর্বাংশে অবস্থিত মালভূমিকে বলে ব্রাজিলের উচ্চভূমি। এই উচ্চভূমি আগ্নেয় শিলা, বেলে পাথর ও লাভা দ্বারা গঠিত। ব্রাজিলের উচ্চভূমি আমাজন অববাহিকার দিকে ক্রমশ ঢালু হয়ে নেমে গিয়েছে। ব্রাজিলের উচ্চভূমি ও আন্দিজ পর্বতের মধ্যস্থলে একটি বিস্তীর্ণ উচ্চভূমি আছে। এর নাম ম্যাটোগ্রসসা। এই উচ্চভূমি ব্রাজিলের মালভূমিকে পশ্চিমদিকে আন্দিজের সঙ্গে যুক্ত করেছে।

13. দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান নদী কী কী ? এদের গতিপথের বর্ণনা দাও।
উত্তরঃ আমাজন, ওরিনকো ও লা-প্লাটা দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান নদী।
আমাজন : পৃথিবীর দ্বিতীয় দীর্ঘতম নদী। এর দৈর্ঘ্য 6276 কিমি। মধ্য পেরুর অন্তর্গত আন্দিজ পর্বতমালার পশ্চিম ঢালের এক হিমবাহ সৃষ্ট হ্রদ হতে উৎপন্ন হয়ে পূর্বাহিনী এই নদী আটলান্টিক মহাসাগরে পতিত হয়েছে। মারানন, জাপুরা, জুয়া, রিও নিগ্রো, রিও মেডিরা, রিও পুরুস, টাপাজোস,
জিজ্ঞ, টোকাটিন্স প্রভৃতি আমাজনের উপনদী। আমাজন অল্পবিস্তর নিরক্ষরেখায় সমান্তরালভাবে প্রবাহিত। নিরক্ষীয় অঞ্চলে সারা বছর বৃষ্টিপাত হয় বলে আমাজনে সারা বছর প্রচুর জলপ্রবাহ থাকে। আমাজনের মতাে এত বিপুল জলরাশি পৃথিবীর আর কোনাে নদীতে প্রবাহিত হয় না। এজন্যে জলপ্রবাহের বিচারে আমাজনকে বলা হয় পৃথিবীর বৃহত্তম নদী

ওরিনকো:  উত্তরদিকে ভেনেজুয়েলা ও কলম্বিয়ার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ওরিনকো নদীর উৎপত্তিস্থলও আন্দিজ পর্বতমালা। এই নদীর দৈর্ঘ্য 2400 কিমি। ক্যারেনি ওরিনকোর প্রধান উপনদী। ক্যারেনির এঞ্জেল জলপ্রপাত পৃথিবীর মধ্যে সর্বোচ্চ জলপ্রপাত (উচ্চতা 9.6 মি)।

পারানা: ব্রাজিলের উচ্চভূমি হতে উৎপন্ন পারানা নদী ও ম্যাটাগ্রোসাে মালভূমি হতে উৎপন্ন প্যারাগুয়ে নদী দুটি একত্রে মিলিত হয়ে পারানা নাম ধারণ করে দক্ষিণ বাহিনী হয়েছে। পশ্চিমদিক হতে আগত সালাভাে নদী, আর পূর্বদিক থেকে আগত উরুগুয়ে নদী পারানার সঙ্গে মিলিত হয়েছে। এই মিলিত প্রবাহ এর পর রিও-ডি-লা প্লাটা নাম ধারণ করে প্রশান্ত মহাসাগরে পতিত হয়েছে।

No comments:

Post a Comment

কোন প্রশ্নের উত্তর ভুল থাকলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবে ( কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সময়ের সাথে সাথে উত্তর পরিবর্তন হয়)